ঝালকাঠিতে লঞ্চে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় নিহত বেড়ে ৩৯

 

মো. নাঈম হাসান ঈমন ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধিঃ ঢাকা বরগুনা রুটের এমভি অভিযান-১০ নামক লঞ্চে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সংবাদ প্রেরন পর্যন্ত ৩৯ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়াও আনুমানিক শতাধিক যাত্রীকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তাদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছেন।

ঢাকা থেকে ছেড়ে বরগুনা যাওয়ার পথে বৃহস্পতিবার ২৩ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ৩টার দিকে ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে এই অগ্নিসংযোগ ঘটে।

অগ্নিকাণ্ডে সংবাদ প্রেরন পর্যন্ত ৩৯ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এবং শতাধিক অগ্নিদগ্ধকে উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে। উদ্ধার অভিযানে বরিশাল ফায়ারসার্ভিস, ঝালকাঠি ফায়ারসার্ভিস, নৌ পুলিশ কোস্টগার্ড কাজ করছে।

দুর্ঘটনার কবল থেকে বেঁচে যাওয়া লঞ্চের একাধিক যাত্রী জানিয়েছেন, রাত ৩টার দিকে লঞ্চের ইঞ্চিনরুমে আগুন লেগে পর্যায়ক্রমে পুরো লঞ্চে ছড়িয়ে পরে। এসময় লঞ্চে থাকা কয়েকশো যাত্রীদের অনেকে প্রানে বাঁচতে নদীতে ঝাপ দেয়। কিন্তু তাতেও অনেকের প্রান রক্ষা হয়নি।

বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মো.বেলাল উদ্দিন জানান, বরিশাল ঝালকাঠির স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট মিলে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছি। কি কারণে আগুনের সূত্রপাত্র হয়েছে তা সঠিক বলা যাচ্ছে না তবে ধারণা করা হচ্ছে ইঞ্জিন রুম থেকে আগুনের সুত্রপাত।

ঘটনার ব্যাপারে জেলা প্রশাসক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব মোঃ নাজমুল আলমকে আহবায়ক করে সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের জন্য নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী পথে রয়েছেন বলে জানাগেছে