মঠবাড়িয়ায় নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকানো সেই মাদ্রাসা ছাত্রীকে সংবর্ধণা দিলো প্রশাসন

জুলফিকার আমীন সোহেল : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় নুশরাত জাহান মিম নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রী নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকাতে ১৩ ডিসেম্বর সোমবার রাতে মঠবাড়িয়া থানায় হাজির হয়। সংবাদটি গত ১৪ ১৫ ডিসেম্বর বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হলে ব্যপক সাড়া ফেলে বিবেকবান মানুষের মনে ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। প্রতিবাদি নুশরাত জাহান মিমকে বুধবার সংবর্ধণা দেয় উপজেলা প্রশাসন। এসময় মিম এর হাতে ক্রেষ্ট নগদ অর্থ তুলে দেয়া হয়।

উপজেলা শহীদ মাখন লাল দাশ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. বশির আহম্মেদ এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ, সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা, স্বাস্থ পরিবার পরিকল্পণা কর্মকর্তা ডাঃ আলী হাসান, সহকারি কমিশনার (ভূমি) শাখাওয়াত জামিল সৈকত, ওসি মুহা. নূরুল ইসলাম বাদল, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. বাচ্চু আকন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান সিফাত, বীর মুক্তিযোদ্ধা শরীফ আলমগীর হোসেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রূপ কুমার পাল, সাংবাদিক জাহিদ উদ্দিন পলাশ, আবদুস সালাম আজাদী, মিজানুর রহমান মিজু প্রমূখ।

মিম উপজেলার মিরুখালী ইউনিয়নের অহেদাবাদ গ্রামের নূর-আলা নূর ইসলামীয়া দাখিল মাদাসার অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী। সে ওই গ্রামের অটোরিক্সা চালক আব্দুর রহমানের মেয়ে। তার মা সম্প্রতি জর্ডান থেকে দেশে এসেছেন। বক্তারা বাল্য বিয়ে ঠেকাতে মাদ্রাসা ছাত্রী নুশরাত জাহান মিম এর সাহসী কাজের প্রসাংসা করেন মিমকে ধন্যবাদ জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. বশির আহম্মেদ, মাদ্রাসা ছাত্রী মিম এর মাকে সেলাই মেশিন কিনে দেবার মিম লেখা-পড়ার জন্য অর্থিক খরচ দেয়ার ঘোষণা দেন