মঠবাড়িয়ায় দুটি হত্যা ও ইভটিজিংসহ একাধিক মামলার আসামী ছাত্র দলের আহবায়ক!

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া দুইটি হত্যা, ইভটিজিং, মাদকসহ একাধিক মামলার আসামি রুবেল আহসানকে আহবায়ক অছাত্র কসাই রাসেল গাজীকে সদস্য সচিব করে ছাত্র দলের কমিটি দেয়ায় দলের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। গত ১৮ নভেম্বর বিকেলে পিরোজপুর জেলা ছাত্রদল জরুরী বৈঠক করে পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব মো. নাজমুল হাসান আজিম মল্লিককে সদস্য সচিব পদ থেকে অব্যাহতি দেয়। ১৯ নভেম্বর জেলা ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক মশিউর রহমান স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আজিম মল্লিককে অব্যহতি দেয়ার বিষয়টি জানা যায়। তকে কি কারণে তাকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে তা উল্লেখ করা হয়নি।

আজিম মল্লিক জানান, গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর পৌর ছাত্রদলের কমিটি গঠন হয়। তখন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা আমাকে আহ্বায়ক দাবি করে জেলা কমিটিকে একটি লিখিত দেন। কিন্তু সম্প্রতি আমাকে বাদ দিয়ে জেলা কমিটি দুইটি হত্যা, ইভটিজিং, মাদকসহ একাধিক মামলার আসামি রুবেলকে রহস্যজনক কারণে আহ্বায়ক করেন। এবং অছাত্র কসাই রাসেলকে ভারপ্রাপ্ত সদস্য সচিব করেন। রুবেল স্থানীয় লীগ নেতা-কর্মিদের সাথে সখ্যতা রয়েছে। এসব কারণে আমি তাকে (রুবেল) এড়িয়ে যাই।

জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হাসান আল মামুন জানান, আজিম মল্লিক অসাংগঠনিক বিধায় তাকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তাকে পৌর ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে জমা দেয়ার জন্য একাধিকবার তাগিদ দেওয়া হলেও তা জমা দেননি।

আজিম মল্লিককে অব্যহতির বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে উপজেলা বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক নেতা জানান, পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব (আজিম মল্লিক) রাজনৈতির কারণে একাধিক মামলার আসামি। কিন্তু আহ্বায়ক রুবেল হত্যা, মাদক ইভটিজিং মামলার আসামি ভারপ্রাপ্ত সদস্য সচিব রাসেল গাজী অছাত্র, কসাই। রুবেল আওয়ামী লীগের আর্থিক সহযোগীতায় রাজনীতি করেন।

উল্লেখ্য-জেলা ছাত্রদলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন উপজেলা পৌর কমিটি গঠন নিয়ে নানা অভিযোগ রয়েছে। এর আগে, জেলা কমিটি গঠন নিয়ে চতুর্থ শ্রেণি পাস কাঠমিস্ত্রি, প্রবাসী, পোশাক শ্রমিকসহ অছাত্র বিবাহিতদের জেলা কমিটিতে পদ দেওয়া হয়েছে। তাদের এমন কমিটি গঠন বাণিজ্য নিয়ে এর আগে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।